Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes
ব্রেকিং:

অপূর্নতার ঈদ ও সাকিবুররা

মনদীপ ঘরাই, ইউএনও (ভারপ্রাপ্ত) অভয়নগর:
গেল বছর প্রথম রোজা। আগের দিন রাতে ৪-৫ বছরের ছোট্ট সাকিবুর খেলার ছলে বাড়ির পেছনের সেপটিক ট্যাঙ্কিতে ফেলে দেয় মোবাইলের চার্জার। বাবা রমজান কৃষি কাজ করেন।বাকি চাচারাও তাই।
রাত গড়িয়ে পরদিন দুপুর পর্যন্ত খোঁজ পরে নি চার্জারের। দুপুরের পর প্রয়োজন হয় মোবাইল চার্জ দেয়ার। খুঁজতে খুঁজতে সামনে আসে সাকিবুরের কীর্তি।
ট্যাঙ্কিতে ডুবে যাওয়া চার্জারের কথা ভুলে যেয়ে নতুন একটি কেনা আমাদের জন্য স্বাভাবিক ভাবনা। তবে, রমজানের অভাবের সংসারে দুই -তিন ‘শ টাকার চার্জারের মূল্যটা নেহায়েত কম ছিল না!
রমজান ওই নোংরার মধ্যে নেমে গেলেন চার্জার উঠিয়ে আনতে। কিন্তু বিষাক্ত গ্যাসে আক্রান্ত হয়ে নিথর হয়ে পড়তে লাগলেন সবার সামনেই। এবার ভাইকে বাঁচাতে ট্যাঙ্কিতে নামলেন হোসেন। ভাইকে বাঁচাতে তো পারলেনই না, উল্টো নিজের পরিণামও হল একই। এবার পাড়া প্রতিবেশী আর আরেক ভাই মিলে উদ্ধার করল রমজান আর হোসেনকে। মৃত!!
……………………
ছোট্ট সাকিবুর পিতৃহারা হল। সেই সাথে এলোমেলো হল রমজান আর হোসেনের পরিবারের সব সুখ-দুঃখের হিসেব-নিকেষ।
দুই ভাই প্রাণ হারালেন নিজ পরিবারের সামনে। ছোট্ট একটি মোবাইল চার্জারের জন্য। এই আমরা। এই আমাদের দেশ। যেখানে দু’শ টাকার মোবাইল চার্জার ক্ষমতা রাখে দুটো পরিবারের স্বপ্নকে লন্ডভন্ড করে দেয়ার।
বছর ঘুরে আবারও রমজান মাস। সাকিবুরদের বাবা হারানোর এক বছর পূর্ণ হল। সেই সাথে অভাব-অনটনও আরও পূর্ণতা পেয়েছে। ঈদ ওদের জন্য আনন্দ আনে না।আনে না নতুন জামা, ভাল খাবার কিছুই।
যারা পড়ছেন, কেউ কি সুস্থ্যভাবে বসে থাকতে পারতেন এমন গল্প শুনে? আমিও পারি নি। নিজের বাসার উৎসবের মত বাজার করেছি রমজান আর হোসেনের পরিবারের জন্য। পিতা-স্বামী হারানো পরিবার দু’টির সব সদস্যদের জন্য কিনেছি ঈদের নতুন পোশাক।
বাবা নেই বলে হারিয়ে যেতে দেই নি সাকিবুরদের ছয়-ভাই বোনের ঈদ।
রমজান মাস এলেই রমজানদের হারানোর স্মৃতিতে কাঁদবে ওরা। তবু ঈদের দিন একটু হলেও হাসি ফুটুক ওদের মুখে। চেষ্টা করতে দোষ কি?
বাড়ির পেছনে বাঁশঝাড়ের মধ্যে চিরদিনের ঘুমন্ত রমজান আর হোসেন কি দেখতে পেলেন তাদের সন্তানের মুখের এক চিলতে হাসি?
” জানি শূণ্যস্থান পূরণ হয় না। তবু চলতে থাকে ভাল থাকার প্রচেষ্টা আর… অভিনয়”
– পায়রা, অভয়নগর, যশোর থেকে।
– “প্রবাস কথা” কে ধন্যবাদ সহযোগি হওয়ার জন্য।ধন্যবাদ সুনীল দাকে।অন্বেষণের জন্য।
যশোরের অভয়নগর উপজেলার (ভারপ্রাপ্ত) ইউএনও মনদীপ ঘরাই এর নিজস্ব ফেসবুক আইডি থেকে নেওয়া।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*